রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪

শিরোনাম

আমি প্রেসিডেন্ট হলে চীনের সব বাণিজ্য সুবিধা বন্ধ করে দেব

বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৩, ২০২৩

প্রিন্ট করুন

ফ্লোরিডা, যুক্তরাষ্ট্র: ‘ফ্লোরিডার গভর্নর ও রিপাবলিকান পার্টির অন্যতম প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী রন ডিস্যান্টিস বলেছেন, তিনি যুক্তরাষ্ট্রের সাথে চীনের সব বাণিজ্য সুবিধা প্রত্যাহার করার পক্ষে। প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে তা কার্যকর করবেন।’ চলতি সপ্তাহে এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন তিনি।

গেল মাসেই প্রেসিডেন্ট পদে লড়াইয়ের ঘোষণা দিয়েছেন রন ডিস্যান্টিস। আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান প্রার্থী হওয়ার ক্ষেত্রে তাকেই সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সবচেয়ে শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী বলে মনে করা হচ্ছে।

রোববার (৯ জুলাই) ফক্স নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ডেস্যান্টিস বলেন, ‘আমি প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে চীনের সব বাণিজ্য সুবিধা বন্ধ করে দেব।’

তিনি আরো বলেন, ‘এর জন্য আমার সম্ভবত কংগ্রেসের অনুমোদন প্রয়োজন হবে। সেটাও যদি না পাওয়া যায়, তাহলে নির্বাহী ক্ষমতা ব্যবহার করে হলেও চীনের বিরুদ্ধে পদক্ষেন নেব।’

এখন থেকে ২৩ বছর আগে ২০০০ সালে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থায় যোগদানের প্রস্তুতি হিসেবে চীনকে ‘নরমাল ট্রেড স্ট্যাটাস’ দেয়ার পক্ষে মত দেয় যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস। যুক্তরাষ্ট্রে শুল্কমুক্ত বাণিজ্যের লক্ষ্যে এটা একটা আইনি স্বীকৃতি। এখন এ মর্যাদা কেড়ে নিতে হলে কংগ্রেসের অনুমোদন প্রয়োজন হবে। তবে, প্রেসিডেন্ট চাইলে নির্বাহী ক্ষমতা ব্যবহার করেও এ সুবিধা বাতিল করতে পারেন।

গেল কয়েক বছরে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যকার সম্পর্কে ক্রমেই অবনতি হয়েছে। বিশেষ করে তাইওয়ান ইস্যু, আধুনিক প্রযুক্তি রফতানিতে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা, চীনের রাষ্ট্র-নিয়ন্ত্রিত শিল্পনীতি, মানবাধিকর লঙ্ঘন, করোনাভাইরাসের উৎস নিয়ে বিতর্ক ও সর্বোপরি বাণিজ্য শুল্ক আরোপ নিয়ে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা চলছে। এমন পরিস্থিতিতে বিশ্বের ‍দুই বৃহত্তম অর্থনীতির দেশের মধ্যে সম্পর্ক মেরামতের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। গেল মাসেই চীন সফর করেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন। এরপর চলতি সপ্তাহে চার দিনের বেইজিং সফরের শেষ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ মন্ত্রী জেনেট ইয়েলেন। সফর শেষে তিনি বলেন, ‘চীনের সিনিয়র কর্মকর্তাদের সাথে তার একাধিক বৈঠকের মধ্য দিয়ে বেইজিং ও ওয়াশিংটন সম্পর্কে ‘একধাপ’ অগ্রগতি হয়েছে।’

তবে, ডেস্যান্টিস চীনকে যুক্তরাষ্ট্রের এক নম্বর ভূরাজনৈতিক হুমকি হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন।

রিপাবলিকান পার্টি থেকে বেশ কয়েকজন প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হওয়ার লড়াইয়ে নামার ঘোষণা দিয়েছেন। এর মধ্যে জনমত জরিপে ট্রাম্পই এখন পর্যন্ত সবচেয়ে এগিয়ে আছেন। এর পরই রয়েছেন রন ডেস্যান্টিস।

সিএন/এমএ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন