শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪

শিরোনাম

ইউনূসের গ্রামীণ আমেরিকার ন্যাশনাল দূত হয়ে কৃতজ্ঞ জেলো

মঙ্গলবার, জুন ২৮, ২০২২

প্রিন্ট করুন

চলমান নিউইয়র্ক ডেস্ক: হলিউডের জনপ্রিয় গায়িকা, অভিনেত্রী, নৃত্যশিল্পী, ফ্যাশন আইকন জেনিফার লোপেজ। বিশ্বজুড়ে কোটি কোটি ভক্ত যাকে ভালবেসে ‘জেলো’ নামেই ডাকে। জেলো আর সাফল্য যেন একে অপরের প্রতিশব্দ। এবার সেই জেলো অন্যদের সাফল্য অর্জনে সাহায্য করতে এগিয়ে এসেছেন। তিনি গ্রামীণ আমেরিকার ‘ন্যাশনাল অ্যাম্বাসেডর’ পদের দায়িত্ব নিয়েছেন।

গ্রামীণ আমেরিকার সাথে নিজের কাজ করা সম্পর্কে ল্যাটিন-আমেরিকান গায়িকা তার অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে লিখেছেন, ‘এ দেশে ল্যাটিনো হয়ে থাকা নিয়ে আমি সব সময়ই গর্ববোধ করি। ২০৩০ সালের মধ্যে স্বল্প আয়ের ল্যাটিনা উদ্যোক্তাদের জন্য জীবন-পরিবর্তনকারী ১৪ বিলিয়ন ডলারের সম পরিমাণ ঋণের মূলধন গড়ার লক্ষ্যকে ত্বরান্বিত করতে গ্রামীণ আমেরিকার সাথে অংশীদারিত্বের সুযোগ পেয়ে আমি সম্মানিত ও যারপরনাই কৃতজ্ঞ। আমরা আমেরিকা জুড়ে ছয় লাখেরও বেশি নারীর ক্ষমতায়ন করব। আমরা কর্মসংস্থান ও নেতৃত্বের জন্য সুযোগের পথ বিনির্মাণ করছি। এ জনগোষ্ঠীর প্রচন্ড এক শক্তি রয়েছে। ব্যবসায়ের ক্ষেত্রে নারীদের জন্য সমতা, অন্তর্ভুক্তি ও সুযোগ তৈরি করা আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ।

সম্প্রতি, এবিসি টেলিভিশনে প্রচারিত আমেরিকার অনুষ্ঠান ‘গুড মর্নিং আমেরিকা’তে আমন্ত্রিত অতিথি জেলো ব্যাখ্যা করেন, কেন তিনি পরবর্তী আট বছরে ছয় লাখ ল্যাটিনা উদ্যোক্তাদের ছোট ব্যবসায় গড়ে তুলতে গ্রামীণ আমেরিকা কর্তৃক ১৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ক্ষুদ্রঋণ দেয়ার পরিকল্পনাকে সাহায্য করছেন। ওই অনুষ্ঠানে জেলো ল্যাটিনা নারীদের উদ্যম ও পরিশ্রমের প্রশংসা করে বলেন, ‘সত্যি বলতে আমি (উদ্যোক্তাদের জন্য) আমেরিকার কাঠামোটা পরিবর্তন করতে চাই। বিশেষ করে ল্যাটিনো নারীদের জন্য।’

ওই অনুষ্ঠানের আরেক আমন্ত্রিত অতিথি গ্রামীণ আমেরিকার প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেয়া জুং জেনিফার লোপেজকে নিজেদের সাথে পেয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে লিখেছেন, ‘আমরা এক সাথে মিলে ব্যবসায়িক  উদ্যোগকে ল্যাটিনা নারীদের জন্য সাফল্যের কার্যকর পথ হিসেবে রূপ দেব। ওই নারীরা ঐতিহাসিকভাবেই আনুষ্ঠানিক আর্থিক বাজারের সুবিধা পান না।’

জেনিজার লোপেজের গ্রামীণ আমেরিকার সাথে যুক্ত হওয়ার বিষয়টি গুরুত্বসহকারে প্রচার করেছে আমেরিকার সব নামিদামি গণ মাধ্যম। গত ৯ জুন জেলো গ্রামীণ আমেরিকার সাথে আনুষ্ঠানিকভাবে যুক্ত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছে বিশ্ব খ্যাত ম্যাগাজিন ফোর্বস। জেনিফার লোপেজ ফোর্বসকে বলেন, ‘আগে ল্যাটিন সম্প্রদায় কেবল কিচেনে রান্নাবান্না করত ও গৃহস্থালি কাজকর্ম করত।’

তিনি জানান, তার মা কলেজে পড়তে পারেন নি ও তিনি সন্তানদের নিয়ে ওই স্বপ্নই দেখতেন।

মার্কিন ম্যাগাজিন ‘দ্য হলিউড রিপোর্টার’ এর এক প্রতিবেদনে গ্রামীণ আমেরিকার বিবৃতি তুলে ধরা হয়েছে, ‘গ্রামীণ আমেরিকা ক্ষুদ্রঋণ প্রকল্পে যোগ দিয়ে জেনিফার লোপেজ ল্যাটিনা ব্যবসায়ী নারীদের আর্থিক স্বাধীনতা ও সাক্ষরতার পথ বুঝতে সাহায্য করার মাধ্যমে তাদের মনোবল বাড়াবেন, অনুপ্রাণিত করবেন, সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবেন।

উল্লেখ্য, নোবেল শান্তি পুরস্কার বিজয়ী মুহাম্মদ ইউনূস ২০০৮ সালে গ্রামীণ আমেরিকা প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। এটি একটি অলাভজনক ক্ষুদ্রঋণ সংস্থা; যা দারিদ্র্যের মধ্যে বসবাসকারী নারীদের ছোট ব্যবসায় গড়ে তুলতে সাহায্য করার জন্য নিবেদিত। সংস্থাটি দরিদ্র জনগোষ্ঠীর ভাগ্য পরিবর্তন করতে ও যুক্তরাষ্ট্রে দারিদ্র্যের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার জন্য ক্ষুদ্রঋণ, প্রশিক্ষণ ও সহায়তা করে থাকে। এখন পর্যন্ত গ্রামীণ আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের ২৩টি শহরে এক লাখ ৫০ হাজার ৮০০ জন নারীকে সেবা দিয়েছে। সংস্থাটি দুই দশমিক ছয় বিলিয়ন ডলার সমপরিমাণ ঋণ বিতরণ করেছে ও এক লাখ ৫৭ হাজার চাকরির ব্যবস্থা করে সেগুলো বজায় রাখতে সাহায্য করেছে।

সিএন/এমএ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন