রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪

শিরোনাম

ইউরোপে ন্যাটোকে আরো বিস্তৃত করা হবে

বৃহস্পতিবার, জুন ৩০, ২০২২

প্রিন্ট করুন

মাদ্রিদ, স্পেন: ইউক্রেন যুদ্ধের পরিপ্রেক্ষিতে মার্কিন নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট নর্থ আটলান্টিক ট্রিটি অর্গানাইজেশনকে (ন্যাটো) ইউরোপে আরো বিস্তৃত করার ঘোষণা দিয়েছেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এ ছাড়া সংস্থাটির মহাসচিব জেনস স্টলটেনবার্গ প্রতিরক্ষা খাতে ব্যয় বাড়াতে সদস্যদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। খবর এএফপি ও আলজাজিরার।

স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদের ইফেমা কংগ্রেস সেন্টারে ন্যাটোর দুই দিনের বার্ষিক শীর্ষ সম্মেলন বুধবার (২৯ জুন) শুরু হয়েছে। সম্মেলনে জো বাইডেন বলেন, ‘আগে যা ছিল’ তার থেকে আজ জোটের প্রয়োজনীয়তা আরো বেড়েছে।’ এ সময় জল, স্থল ও আকাশপথের সব দিকে ন্যাটোর শক্তি বৃদ্ধির ঘোষণা দেন বাইডেন।

ন্যাটোর মহাসচিব জেনস স্টলটেনবার্গের সাথে সাক্ষাতের পর বাইডেন ঘোষণা দেন, স্পেনের রোটা সমুদ্র উপকূলে মার্কিন নৌঘাঁটিতে যুদ্ধজাহাজের বহরের সংখ্যা চার থেকে ছয়ে উন্নীত হবে, পোল্যান্ডে পঞ্চম আর্মি কোরের একটি স্থায়ী সদর দপ্তর প্রতিষ্ঠা করা হবে ও রোমানিয়ায় তিন হাজার সেনার সাথে আরো দুই হাজার সেনার সমন্বয়ে অতিরিক্ত ব্রিগেড গঠন করা হবে।

তিনি আরো জানান, বাল্টিক দেশগুলোতে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন ও যুক্তরাজ্যে অতিরিক্ত দুই স্কোয়াড্রন এফ-৩৫ স্টিলথ যুদ্ধবিমানের বহর যুক্ত করার পাশাপাশি জার্মানি ও ইতালিতে আকাশে সক্ষমতাসহ অন্যান্য ক্ষমতা বৃদ্ধি করা হবে।

জেনস স্টলটেনবার্গ সম্মেলন শুরুর প্রস্তুতি পর্বে বলেন, ‘ক্রমবর্ধমানভাবে ‘অনিশ্চিত’ ও ‘বিপজ্জনক’ পৃথিবীতে সদস্য দেশগুলোকে সামরিক ব্যয় বৃদ্ধি করতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক আগ্রাসনের মধ্য দিয়ে প্রতিরক্ষায় ন্যাটোর দৃষ্টিভঙ্গিতে ‘মৌলিক পরিবর্তন’ এসেছে।’

ন্যাটো ফরফে এরই মধ্যে জানানো হয়েছে, রাশিয়ার প্রতিবেশী স্ক্যান্ডিনেভীয় অঞ্চলের দুই দেশ সুইডেন ও ফিনল্যান্ড জোটে যোগ দিতে পারবে।

জোটটির পক্ষ থেকে এরই মধ্যে ঘোষণা দেয়া হয়েছে, দ্রুত প্রতিক্রিয়া বাহিনীর সদস্য সংখ্যা ৪০ হাজার থেকে তিন লাখে উন্নীত করা হবে। তাদের জোটের পূর্ব সীমান্তের দেশগুলোতে মোতায়েন করা হবে। সেখানে সামরিক সরঞ্জাম ও গোলাবারুদ মজুদের পরিকল্পনাও রয়েছে।

বর্তমানে ন্যাটোভুক্ত ৩০টি দেশের মাত্র নয়টি দেশ প্রস্তাব অনুযায়ী মোট দেশজ উত্পাদনের (জিডিপি) দুই শতাংশ প্রতিরক্ষায় ব্যয় করে। এবারের সম্মেলনের আয়োজক দেশ স্পেনের ব্যয় এর অর্ধেক।

এ পরিপ্রেক্ষিতে স্টলটেনবার্গ বলেন, ‘আরো বিপজ্জনক এক পৃথিবীতে আমাদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে প্রতিরক্ষায় আরো বিনিয়োগ করতে হবে। ’

এ দিকে, ন্যাটোর প্রস্তাবিত সম্প্রসারণকে কেন্দ্র করে রাশিয়ার উপ পররাষ্ট্র মন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকভ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘যে সব দেশে অতিরিক্ত সামরিক উপস্থিতি থাকবে, সেখানে নিরাপত্তা জোরদার হবে না। স্থিতিশীলতার সম্ভাবনা বাড়বে না বরং ঝুঁকি বাড়বে।’

তিনি জোর দিয়ে বলেন, ‘রাশিয়া এসবের জবাব দেবে।

সিএন/এমএ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন