বুধবার, ২২ মে ২০২৪

শিরোনাম

ইলন মাস্কের টুইটারকে ‘এক্সে’ এ রূপান্তরের পেছনের কাহিনী

রবিবার, জুলাই ৩০, ২০২৩

প্রিন্ট করুন

ক্যালিফোর্নিয়া, যুক্তরাষ্ট্র: পৃথিবীর শীর্ষ ধনী ইলন মাস্ক বৈদ্যুতিক গাড়ি কোম্পানি টেসলার প্রতিষ্ঠাতা, মহাকাশ পরিবহন সংস্থা স্পেসএক্সের প্রতিষ্ঠাতা গেল বছর কিনে নেন মাইক্রো ব্লগিং প্ল্যাটফর্ম টুইটার। গেল সপ্তাহে নাম পরিবর্তনের আগে প্ল্যাটফর্মটি নিয়ে তিনি ইতিমধ্যে বেশ ‍কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছেন। গেল সপ্তাহে বলতে গেলে এক দিনের নোটিসে প্ল্যাটফর্মটির চিরচেনা লোগোটি পরিবর্তন করে ফেলেন তিনি। একই সাথে কোম্পানির নামও বদলে রাখা হয় এক্স.কম। অবশ্য টুইটার কেনাই হয়েছিল এক্স হোল্ডিং নামের একটা কোম্পানির নামে। খবর আরটির।

মাস্কের তড়িৎ সিদ্ধান্তের ফলে নীল রঙের টুইটারের আগের লোগোটার স্থান নিয়েছে রোমান বর্ণমালা ‘এক্স’। কালো পটভূমিতে সাদা রঙের এক্স বর্ণমালাটি মাইক্রো ব্লাগিং প্ল্যাটফর্মটির লোগো করার কারণ হিসেবে মাস্ক বলেন, ‘আমি এটিকে সব কিছুর প্ল্যাটফর্মে পরিণত করতে চাই। টুইটার শব্দটা ও লোগোটা আমার সেই উদ্দেশ্যের সাথে যায় না। এ কারণে আমি প্ল্যাটফর্মটির নাম ও লোগো পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

এ কথা ঠিক যে, মাস্ক টুইটারকে চীনের ‘উয়িচ্যাটের’ আদলে ভিন্ন ধাঁচের একটা প্ল্যাটফর্মে রূপান্তরিত করতে চান। কিন্তু, নাম পরিবর্তনের মূল কারণ সম্ভবত সেটা নয়।

যুক্তরাষ্ট্রের সাংবাদিক ব্র্যাডলি ব্ল্যাঙ্কেনশিপের ধারণ, টুইটারের নাম এক্স করার মোটাদাগে দুটি কারণ বলা যায়। মাস্কের মধ্যে এক্স বর্ণমালা নিয়ে অন্য রকম আসক্তি রয়েছে। তার এক সন্তানের ডাকনাম এক্স। তার রকেট কোম্পানির নাম স্পেসএক্স। এ আসক্তি থেকেই সম্ভবত তিনি টুইটারের লোগো করেছেন এক্স দিয়ে এবং মাস্ক নিজেকে মানবজাতির ত্রাণকর্তা মনে করেন। নিজেকে মনে করেন জিনিয়াস। আসলে তিনি একজন নকলবাজ। ধান্দাবাজ।  

উদাহরণ হিসেবে তার বৈদ্যুতিক গাড়ি কোম্পানি টেসলার কথা বলা যায়। তিনি নিজেকে এ কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা দাবি করেন। প্রকৃত বিষয় হচ্ছে, কোম্পানিটা তিনি প্রতিষ্ঠা করেননি। একটি কোম্পানি কিনে নিয়ে তিনি তার নতুন নাম দিয়েছেন মাত্র।

এখন টুইটারের লোগো ও নাম পরিবর্তন করেও মাস্ক একই ধরনের কাজ করতে চান। তিনি টুইটারের মূল প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক ডরসির নাম মুছে দিয়ে এক দিন হয়তো নিজেকেই প্ল্যাটফর্মটির প্রতিষ্ঠাতা দাবি করবেন। এতে করে নিজের ভাবমূর্তি উজ্বল হবে বলে মনে করেন যুক্তরাষ্ট্রের এ ধনকুবের।

সিএন/এমএ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন