রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪

শিরোনাম

ইসরায়েলের দূতাবাসের সামনে গায়ে আগুন দেওয়া মার্কিন সেনা মারা গেছেন

মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী ২৭, ২০২৪

প্রিন্ট করুন

চলমান ডেস্ক: গাজা যুদ্ধের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে ওয়াশিংটনে ইসরায়েলের দূতাবাসের সামনে গায়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনীর সিনিয়র এয়ারম্যান অ্যারন বুশনেল মারা গেছেন।

২৫ বছর বয়সের বুশনেল যুক্তরাষ্ট্রের ৫৩১তম ইন্টেলিজেন্স সাপোর্ট স্কোয়াড্রন এর সাইবার প্রতিরক্ষা বিভাগের একজন বিশেষজ্ঞ ছিলেন।

স্থানীয় পুলিশ এবং বিমান বাহিনীর পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে সোমবার এ সেনাকর্মকর্তার মৃত্যুর খবর জানানো হয়।

নিউ ইয়র্ক টাইমসের তথ্যানুযায়ী, রোববার স্থানীয় সময় বিকালে ওয়াশিংটন ডিসিতে ইসরায়েলের দূতাবাসের সামনে আত্মাহুতি দেওয়ার সময় সামরিক বাহিনীর পোশাক পরা এই সেনা কর্মকর্তা ইন্টারনেটে সরাসরি সম্প্রচার করা একটি ভিডিওতে বলেছেন, “আমি আর গণহত্যার সঙ্গে জড়িত থাকব না।”

তারপরই তিনি নিজ শরীরে স্বচ্ছ একটি তরল পদার্থ ঢেলে দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেন এবং ‘ফিলিস্তিন মুক্ত হোক’ বলে চিৎকার করতে থাকেন। গুরুতর অবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ওয়াশিংটনের ইসরায়েলি দূতাবাসের সামনে নিয়মিতই গাজা যুদ্ধের বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রতিবাদ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। গাজায় চলা যুদ্ধ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অংশে ফিলিস্তিনপন্থি ও ইসরায়েলপন্থি বিভিন্ন প্রতিবাদ হচ্ছে।

এর আগে ডিসেম্বরে দেশটির আটলান্টা শহরে ইসরায়েলি কন্স্যুলেটের সামনে আরেক ফিলিস্তিনপন্থি প্রতিবাদকারী নিজ শরীরে আগুন ধরিয়ে দিয়েছিল।

গত বছরের ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে নজিরবিহীন আক্রমণ চালিয়ে ১২০০ ইসরায়েলিকে হত্যা করে গাজা শাসনকারী ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী গোষ্ঠী হামাস। হামাসের ফিলিস্তিনি যোদ্ধারা ইসরায়েল থেকে ২৫৩ জনকে বন্দি করে গাজায় নিয়ে জিম্মি করে রাখে।

এর প্রতিশোধ নিতে ওই দিন থেকেই ফিলিস্তিনি ছিটমহল গাজায় নির্মম আক্রমণ শুরু করে ইসরায়েল। এরপর থেকে সাড়ে চার মাসেরও বেশি সময় ধরে চলা অবিরাম হামলায় গাজায় প্রায় ৩০ হাজার ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে।

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন