বুধবার, ২২ মে ২০২৪

শিরোনাম

এলিয়েনদের কথা কংগ্রেসনাল কমিটিকে জানালেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক গোয়েন্দা

বৃহস্পতিবার, জুলাই ২৭, ২০২৩

প্রিন্ট করুন

ওয়াশিংটন ডিসি, যুক্তরাষ্ট্র: আমরা একা নই (মহাবিশ্বে) ও েআমেরিকান কর্তৃপক্ষ (এলিয়েনদের অস্তিত্বের) প্রমাণ ঢেকে রেখেছে বলে বুধবার (২৬ জুলাই) কংগ্রেসনাল কমিটিকে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক গোয়েন্দা কর্মকর্তা ডেভিড গ্রুশ। গ্রুশ সাথে এও দাবি করেছেন, কয়েক দশক ধরে ক্র্যাশ সাইট থেকে আনআইডেন্টিফায়েড অ্যারিয়াল ফেনোমেনা (ইউএপি) পুনরুদ্ধার এবং এর রিভার্স-ইঞ্জিনিয়ারিং (পুনরায় তৈরি করা) প্রোগ্রাম সম্পর্কে তাকে জানানো হয়েছিল। যারা এ প্রোগ্রাম সম্পর্কে জানিয়েছেন, তারা এখনো সেখানে কাজ করছেন। খবর নিউজ নেশন্স, এনডিটিভির।

কংগ্রেসনাল কমিটির পক্ষ থেকে গ্রুশের কাছে জানতে চাওয়া হয়, তার কাছে এ ব্যাপারে কোন প্রমাণ রয়েছে কি না। গ্রুশ প্রমাণের বিষয়ে না বললেও তিনি জানিয়েছেন, এখনো এর সাথে যুক্তদের নামের তালিকা তিনি কংগ্রেসনাল কমিটিকে দিয়ে যাবেন।

শুনানির সময় তাকে বার বার বিস্তারিত বিবরণের জন্য চাপ দেয়া হচ্ছিল। তবে, তিনি বলেন, ‘জনসম্মুখে শ্রেণিবদ্ধ তথ্যের বিষয়ে তিনি মন্তব্য করতে পারবেন না।’ যদিও সংগৃহীত তথ্যগুলো তিনি তার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের পাঠিয়েছিলেন বলে জানান।

তিনি কংগ্রেসনাল কমিটিকে জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্র সরকারের হাতে এলিয়েনের দেহের বায়োলজিক্যাল উপাদানও রয়েছে।

এর আগে নিউজ নেশনে সাক্ষাৎকারেও তিনি বলেছিলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র সরকার যে ইউএপি নিয়ে শুধু জনগণের কাছেই তথ্য গোপন করছে এমন নয়, কংগ্রেসের কাছেও তারা গোপন করেছে। দেশটির সিনেটর টিম বার্চেটও তার এ বক্তব্য সমর্থন করে বেশ কয়েক বার গণমাধ্যমের সাথে কথা বলেছেন।’

সে সময় গ্রুশ যা দাবি করেছিলেন, তা হল যুক্তরাষ্ট্রের কাছে মানুষের তৈরি নয় এমন যান রয়েছে। এ ছাড়া, ইউএপির প্রকল্প গোপন রাখতে গিয়ে প্রাণহানির ঘটনাও ঘটেছে। এলিয়েনের হাতে মানুষের মৃত্যুর ঘটনাও ঘটেছে।

যানগুলো বিধ্বস্ত হওয়া যে সাইটগুলো থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে, তার উপকরণগুলো বহিরাগত উৎসের। সেখানে অন্যান্য পারমাণবিক ব্যবস্থা ও রেডিওলজিক্যাল স্বাক্ষরও রয়েছে, যেগুলো পৃথিবীর কোন প্রযুক্তির সাথে মিল নেই। তিনি দাবি করেছেন, প্রতিযোগী শক্তিগুলো থেকে এগিয়ে থাকতে এ প্রযুক্তিগুলো রি-ইঞ্জিনিয়ারিংও করছে যুক্তরাষ্ট্র।

বুধবারের (২৬ জুলাই) কংগ্রেসনাল শুনানিতে নৌবাহিনীর দুইজন সাবেক পাইলটও যোগ দিয়েছিলেন। যারা অপারেশনাল কার্যক্রম পরিচালনার সময় ইউএপির মুখোমুখি হয়েছিলেন। তবে, পেন্টাগনের পক্ষ থেকে বরাবরই দাবি করা হয়েছে, কোন ধরনের এলিয়েনশিপ বা ইউএপি তাদের কাছে নেই এবং এ সংক্রান্ত রিভার্স-ইঞ্জিনিয়ারিং কোন প্রকল্পও চলমান নেই।

ডেভিড গ্রুশ ২০১৯-২০২১ সাল পর্যন্ত ইউএস আনআইডেন্টিফায়েড অ্যারিয়াল ফেনোমেনা (ইউএপি) টাস্কফোর্সে ন্যাশনাল রিকনেসান্স অফিসের প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করেছেন। এরপর ২০২২ সালের ২২ জুলাই পর্যন্ত তিনি ইউএপি বিশ্লেষণ বিষয়ক নেতৃস্থানীয় পর্যায়ে কাজ করেছেন ন্যাশনাল জিওস্পেশাল ইন্টেলিজেন্স এজেন্সিতে।

সিএন/এমএ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন