রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪

শিরোনাম

কাল থেকে বিধিনিষেধ শেষ, মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি

সোমবার, ফেব্রুয়ারী ২১, ২০২২

প্রিন্ট করুন

চলমান ডেস্ক: দেশে আর করোনার বিধিনিষেধ থাকছে না। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ কমে যাওয়ায় সরকারের জারি করা ১১ দফা বিধি-নিষেধের মেয়াদ আগামীকাল মঙ্গলবার শেষ হচ্ছে। যার অর্থ কাল থেকে স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় ফিরছে দেশ। গণপরিবহন চলবে আগের মতো, রেস্তোরাঁয় বসার ক্ষেত্রে থাকবে না কোনো শর্ত, বাধা নেই উন্মুক্ত স্থানে সভা-সমাবেশের ক্ষেত্রেও। তবে মাস্ক পরাসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

এদিকে, করোনার কারণে দ্বিতীয় দফায় এক মাস বন্ধ থাকার পর মঙ্গলবার থেকে খুলছে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সশরীরে শ্রেণিকক্ষে অংশ নেবে শিক্ষার্থীরা। আর ১২ বছরের ঊর্ধ্বে যেসব শিক্ষার্থী করোনা টিকা নিয়েছে, তারা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যেতে পারবে। অবশ্য প্রাথমিকের ছুটি ১ মার্চ পর্যন্ত বাড়ানোয় এসব বিদ্যালয় খুলবে আগামী ২ মার্চ। তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কীভাবে চলবে এ বিষয়ে ২০ দফা নির্দেশনা জারি করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি)।

গত নভেম্বর থেকে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে। ডিসেম্বরে বাংলাদেশেও ওমিক্রন আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর দিন দিন সংক্রমণ বাড়তে থাকলে তা নিয়ন্ত্রণে গত ৪ জানুয়ারি ১৫ দফা নির্দেশনা জারি করে স্বাস্থ্য অধিদফতর। এরপরে তা বাড়তে বাড়তে ২১ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত বাড়তে থাকে।

এ ব্যাপারে গতকাল রোববার মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ২১ ফেব্রুয়ারির পর থেকে নতুন করে কোনো বিধি-নিষেধ বর্ধিত করা হচ্ছে না। আর ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা) খুলে যাচ্ছে। বিধিনিষেধ উঠে গেলেও সর্বস্তরের মাস্ক পরা বাধ্যতামূলকই থাকছে। যে কোনও সভা-সেমিনার কিংবা সামাজিক অনুষ্ঠানে অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে বলেও এসময় উল্লেখ করেন তিনি।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরও বলেন, ২৬ ফেব্রুয়ারি সারা দেশে এক কোটি করোনা টিকা দেয়া হবে। জাতীয় পরিচয়পত্র ছাড়াই স্থায়ী ঠিকানা লিখে নিয়ে গিয়েই টিকা দেয়া যাবে। আর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় চিন্তা করছে ১২ বছরের নিচেও কীভাবে তাড়াতাড়ি ভ্যাকসিন দেয়া যায় তা নিয়ে কাজ করার।

উল্লেখ্য, দেশে করোনভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের সংক্রমণ নিয়ে উদ্বেগ ছড়ালে সরকার গত ১৩ জানুয়ারি থেকে ৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ১১-দফা করোনার বিধিনিষেধ আরোপ করেছিল। পরে বিধিনিষেধের মেয়াদ আরও এক দফা বাড়িয়ে ২১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত করা হয়েছে।

এফআইটি/সিএন

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন