সোমবার, ২০ মে ২০২৪

শিরোনাম

চবির বঙ্গবন্ধু হল খুলে দিতে ছাত্রলীগের স্মারকলিপি

বুধবার, মে ১৫, ২০২৪

প্রিন্ট করুন

সিএন প্রতিবেদন: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) নবনির্মিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল খুলে দেওয়ার দাবি জানিয়েছে শাখা ছাত্রলীগের কনকর্ড গ্রুপ।

বুধবার (১৫ মে) দুপুরে হল খুলে দেওয়ার দাবিতে উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দেন সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

স্মারকলিপিতে লেখা হয়, বহু বছর যাবত চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হয়ে আসছে। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস, আবাসিক হল এবং অনুষদ সমূহ নানারূপ সমস্যায় জর্জরিত। বিশেষত আবাসিক হল সমূহে শিক্ষার কোনো পরিবেশ নাই। এককেটা হল যেন এককেটা আবাসিক কারাগার, যেন মাদকের আখড়া। বিভিন্ন হলে বহিরাগতদের অবস্থান, গুটিকয়েক শিক্ষার্থীদের সম্পৃক্ততায় মাদকের আড্ডা সহ নানারকম নেশার জলসায় নিয়মিতই মেতে উঠছে বিপথগামী শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের কতিপয় শিক্ষার্থীদের এই নৈতিক স্খলন সত্যিই পীড়াদায়ক।

আরও লেখা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বাঙ্গীন বিষয়ে আপনার প্রশাসনের আন্তরিকতার বিষয়ে আমরা আশাবাদী। আবাসিক হলে লিগ্যালি ছাত্রদের জন্য সিট বরাদ্দ দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে। আমরা আগেও বহুবার যৌক্তিকতা ন্যায্যতা ও অন্যান্য ক্রাইটেরিয়ার ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের আবাসিক হলে সিট বরাদ্দের বিষয়ে বলেছি। পরিতাপের বিষয় যে সাধারণ শিক্ষার্থীদের জন্য হলে শিক্ষা ও আবাসনের সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিতকল্পে আমাদের যুক্তিসংগত দাবি দাওয়া বরাবরই অগ্রাহ্য করা হয়েছে। তথাপি ক্যাম্পাসে সাধারণ শিক্ষার্থীদের জন্য একটা সুন্দর ও নিরাপদ পরিবেশ নিশ্চিতের ব্যাপারে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা অঙ্গীকারবদ্ধ।

এসময় সংগঠনের পক্ষ থেকে চারটি দাবি জানানো হয়।

১. বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল খোলে দেয়া এবং শিক্ষার্থীদের যত দ্রুত সম্ভব আবাসনের আওতায় আনা।

২. বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল হলে লিগ্যালি অ্যাটাচমেন্টের ব্যবস্থা করা।

৩. আবাসিক হলে বহিরাগতদের অবস্থান রোধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া।

৪. মাদকের সহজলভ্যতা, মাদক সেবনকারীদের শনাক্ত করা সহ সর্বনাশা মাদকের বিষয়ে জিরো টলারেন্স ঘোষণা।

এ বিষয়ে কনকর্ড গ্রুপের নেতা ও শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি আবরার শাহরিয়ার বলেন, সাধারণ শিক্ষার্থীরা যেন নিরাপদ পরিবেশে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করে হলে থেকে ভবিষ্যতে দেশ ও জাতি গঠনে শক্তিশালী ভূমিকা রাখতে পারে সে ব্যাপারে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ বরাবরই সচেতন ছিল। সে লক্ষ্য নিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের পাশে চবি ছাত্রলীগ বরাবরই ছিল সহায়ক শক্তি হিসেবে। তারই ধারাবাহিকতায় ক্যাম্পাসে উদ্ভূত বিভিন্ন সমস্যার সমাধানকল্পে ভিসি স্যারের সাথে দেখা করে স্মারকলিপি প্রদান ও সার্বিক আলোচনায় অংশ নিয়েছে।

সিএন/এমটি

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন