বুধবার, ২২ মে ২০২৪

শিরোনাম

চীন ও ইউক্রেন ইস্যুতে ইতালির প্রধানমন্ত্রীর সাথে বাইডেনের বৈঠক

শনিবার, জুলাই ২৯, ২০২৩

প্রিন্ট করুন

ওয়াশিংটন ডিসি, ‍যুক্তরাষ্ট্র: চীন ও ইউক্রেন ইস্যু নিয়ে ইতালির প্রধানমন্ত্রী জর্জিয়া মেলোনির সাথে বৈঠক করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। বৃহস্পতিবার (২৭ জুলাই) হোয়াইট হাউজের ওভালে বৈঠকে বসেন এ দুই নেতা। খবর আল-জাজিরার।

চীন, অভিবাসন, গর্ভপাত এবং এলজিবিটিকিউ অধিকারের বিষয়ে ইতালির সাথে উষ্ণ আলোচনা হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের। জো বাইডেনের সাথে বৈঠকে জর্জিয়া মেলোনির উগ্র-ডানপন্থি অবস্থান নিয়েও মতপার্থক্য কমেছে বলে জানিয়েছে হোয়াইট হাউজ। বৈঠক শেষে মেলোনির প্রশংসা করেন বাইডেন।  

বৈঠকের শেষে বাইডেন বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র ও ইতালি দৃঢ়ভাবে ইউক্রেনের পাশে দাঁড়িয়েছে। মেলোনির সরকার বৈঠকের সময় রাশিয়ার নৃশংসতার বিরোধিতা করে খুব শক্তিশালী অবস্থান নেয়ার প্রস্তাব করেছেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমি ইতালীয় জনগণকে ধন্যবাদ জানাই। তারা আপনাকে (মেলোনি) সমর্থন করার পাশাপাশি ইউক্রেনকে সমর্থন করছে। এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’  

অন্য দিকে, মেলোনি জানান, ইউক্রেনের প্রতি ইতালির সমর্থনের জন্য তিনি গর্বিত।

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের কঠিন সময়ে কোন বন্ধুরা পাশে আছে, তা আমরা জানি। আমি মনে করি, পশ্চিমা দেশগুলো দেখিয়েছে যে, তারা একে অপরের ওপর অনেক বেশি নির্ভর করতে পারে। এটা সত্যিই দারুণ।’

চীনের বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভে (বিআরআই) ইতালির অংশগ্রহণ নিয়ে দুই নেতা আলোচনা করলেও এ বিষয়ে ওয়াশিংটনের দৃষ্টিভঙ্গি কী তা প্রকাশ করেননি মেলোনি।

মেলোনির ব্রাদার্স অব ইতালি পার্টির সাথে বেনিতো মুসোলিনির ফ্যাসিবাদী আন্দোলনের ঐতিহাসিক যোগসূত্র রয়েছে। তিনি গণ অভিবাসন, সমকামিতার সমালোচনা করে থাকেন। এ ছাড়া পোল্যান্ড ও স্পেনের অতি-ডান রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতি তার রয়েছে শক্ত সমর্থন। এসব কারণে মেলোনির নির্বাচনে জয় পেলে তার কড়া সমালোচনা করেছিলে বাইডেন প্রশাসন। গণতন্ত্র ও ন্যাটোর মত আন্তর্জাতিক জোটের জন্য মেলোনির জয়ের প্রভাব নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন বাইডেন।

সিএন/এমএ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন