রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪

শিরোনাম

ছয় মাসে ধর্ষিত ৪৭৬ নারী, নির্যাতন ও হত্যার শিকার ৮০৭ শিশু

বুধবার, জুলাই ৬, ২০২২

প্রিন্ট করুন

ঢাকা: চলতি বছর ২০২২ সালের জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত সময়ে বাংলাদেশে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ৪৭৬ নারী। ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে ২৪ নারীকে। একই সময় ৮০৭ শিশু বিভিন্ন ধরনের নির্যাতন ও হত্যার শিকার হয়েছে।

আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) ২০২২ সালের অর্ধ-বছরের মানবাধিকার লঙ্ঘন পরিস্থিতির পরিসংখ্যানগত পর্যালোচনা প্রতিবেদনে এ চিত্র ওঠে এসেছে। মঙ্গলবার (৫ জুলাই) লিখিতভাবে প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হয়। মানবাধিকার লঙ্ঘনের এ সংখ্যাগত প্রতিবেদনটি দশটি জাতীয় দৈনিক ও বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত সংবাদ ও আসকের নিজস্ব সূত্র থেকে সংগৃহীত তথ্যের ভিত্তিতে তৈরি করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘গত ২ এপ্রিল তেজগাঁও কলেজের একজন নারী প্রভাষককে ‘টিপ পরার কারণে’ লাঞ্ছিত করে এক পুলিশ সদস্য। ২ মে নরসিংদী রেলওয়ে স্টেশনে ‘পোশাকের কারণে’ এক তরুণীকে হেনস্তা করা হয়। এ সময়কালে লাঞ্ছিত ও হামলার শিকার হয়েছেন ৮২ জন নারী। যাদের মধ্যে যৌন হয়রানির কারণে পাঁচ নারী আত্মহত্যা করেছেন। অন্য দিকে, যৌন হয়রানির প্রতিবাদ করতে গিয়ে বখাটে কর্তৃক তিন জন পুরুষ হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন। এ সময় পারিবারিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন ২২৮ নারী। এর মধ্যে ১৪০কে হত্যা করা হয়েছে। যৌতুককে কেন্দ্র করে নির্যাতনের শিকার হয়েছেন ৯৮ নারী। যৌতুকের জন্য শারীরিক নির্যাতনের মাধ্যমে হত্যা করা হয়েছে ৪৯ জনকে ও যৌতুকের কারণে নির্যাতনের শিকার হয়ে আত্মহত্যা করেছেন ছয় নারী। এ সময়কালে ১২ জন গৃহকর্মী নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। যাদের মধ্যে পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে।’

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, অ্যাসিড সন্ত্রাসের শিকার হয়েছেন আট নারী; যাদের মধ্যে তিন জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ছয় মাসে মোট ৮০৭ শিশু নির্যাতন ও হত্যার শিকার হয়েছে। এর মধ্যে হত্যার শিকার হয়েছে ১৫২ শিশু, আত্মহত্যা করেছে ২৬ শিশু, বিভিন্ন সময়ে মোট ৫৬ শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে, রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে ১৩ শিশুর ও বলাৎকারে ব্যর্থ হয়ে এক শিশুকে হত্যা করা হয়েছে। গত ছয় মাসে দেশের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের নির্যাতনে দশজন নিহত হয়েছেন।

সিএন/এমএ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন