বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪

শিরোনাম

ডেঙ্গু টিকার ট্রায়ালে আশাব্যঞ্জক ফলাফল মিলল বাংলাদেশে

শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২৩

প্রিন্ট করুন
অক্সফোর্ড এস্ট্রাজেনেকা টিকার প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ নিয়েও করোনায় আক্রান্ত 1
অক্সফোর্ড এস্ট্রাজেনেকা টিকার প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ নিয়েও করোনায় আক্রান্ত 1

সিএন প্রতিবেদন: বাংলাদেশে একটি ডেঙ্গু টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল সম্পন্ন হয়েছে। এই ট্রায়ালে আশাব্যঞ্জক ফলাফল মিলেছে। যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব ভারমন্টের (ইউভিএম) লার্নার কলেজ অব মেডিসিন এবং আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র, বাংলাদেশের (আইসিডিডিআরবি) গবেষকরা এই টিকা উদ্ভাবন করেছে।

আশা করা হচ্ছে, সম্প্রতি প্রায় মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া মশাবাহিত এই মারাত্মক ভাইরাসজনিত জ্বরের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এই টিকা কার্যকর সুরক্ষা দেবে।

বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) এই ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের ফলাফল বিজ্ঞান সাময়িকী দ্য ল্যানসেট ইনফেকশাস ডিজিজেসে প্রকাশিত হয়েছে।

টেট্রাভ্যালেন্ট ডেঙ্গু ভ্যাকসিন টিভি ০০৫-এর একক ডোজের মূল্যায়ন করা ছিল গবেষকদের উদ্দেশ্য। তাঁরা দেখেছেন, এই টিকা শিশু ও প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য নিরাপদ এবং এটি ডেঙ্গু ভাইরাসের বিরুদ্ধে যথেষ্ট প্রতিরোধ সক্ষমতা প্রদর্শন করে। যেখানে বর্তমানে তরল ব্যবস্থাপনা (শরীরে পানির পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ) এবং উপসর্গ নিয়ন্ত্রণই ডেঙ্গুর একমাত্র সহজলভ্য চিকিৎসা।

আইসিডিডিআরবি এবং ইউভিএমের ভ্যাকসিন টেস্টিং সেন্টারের (ভিটিসি) গবেষকেরা ২০১৫ সালে ‘ডেঙ্গু ইন ঢাকা ইনিশিয়েটিভ (ডিআইডিআই)’ শিরোনামে তাঁদের ট্রায়াল শুরু করেন। ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল এবং ল্যাবরেটরি অবকাঠামো নির্ধারণের পাশাপাশি প্রাথমিকভাবে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাবের সমীক্ষার কাজটি ২০১৫ সালে আইসিডিডিআরবিতেই সম্পন্ন করা হয়।

ট্রায়ালে ১ থেকে ৪৯ বছর বয়সী প্রায় ২০০ জন স্বেচ্ছাসেবক অংশ নেন। ২০১৬ থেকে শুরু করে তিন বছরের মধ্যে টিভি ০০৫ টিকা এবং প্লাসিবো (নকল টিকা) পেয়েছেন তাঁরা। টিকা প্রয়োগের পরবর্তী তিন বছর তাঁদের পর্যবেক্ষণে রাখা হয়।

গবেষণায় দেখা গেছে, টিভি ০০৫ গ্রহণের ফলে উল্লেখযোগ্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। টিকা নেওয়ার পরে বেশির ভাগ স্বেচ্ছাসেবীর মধ্যে ডেঙ্গুর চারটি সেরোটাইপের (ডেঙ্গু ভাইরাসের ধরন) অ্যান্টিবডি পাওয়া গেছে। এর মধ্যে যারা আগে ডেঙ্গু ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছিলেন, তাঁদের শরীরে অ্যান্টিবডির পরিমাণ ছিল বেশি। তবে যাঁরা পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার আগে ডেঙ্গু আক্রান্ত হননি, তাঁদের ক্ষেত্রেও যথেষ্ট প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে উঠতে দেখা গেছে।

সিএন/এমটি

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন