রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪

শিরোনাম

তৈরি পোশাক শিল্পে উন্নত কর্মপরিবেশ বজায় রাখা জরুরী

শনিবার, জুলাই ২, ২০২২

প্রিন্ট করুন

চট্টগ্রাম: বিজিএমইএ-আইএলও এর যৌথ প্রকল্পের অধীনে তৈরি পোশাক শিল্পের ‘সোস্যাল ডায়ালগ অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল রিলেশন্স (এসডিআইআর) এর ওপর দুইদিন ব্যাপী দুইটি ব্যাচের প্রশিক্ষণ কর্মসূচি সম্পন্ন হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) বিকালে চট্টগ্রাম সিটির খুলশীস্থ বিজিএমইএ ভবনে সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে সার্টিফিকেট তুলে দেন বিজিএমইএ এর প্রথম সহ সভাপতি জনাব সৈয়দ নজরুল ইসলাম। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিজিএমইএ এর সহ সভাপতি রাকিবুল আলম চৌধুরী ও বিজিএমইএ এর পরিচালক এম আহসানুল হক। বিজিএমইএ এর কর্মকর্তা, প্রশিক্ষক ও প্রশিক্ষণার্থীরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সৈয়দ নজরুল ইসলাম বলেন, ‘পোশাক শিল্প একটি শ্রমঘন শিল্প, যার ৮০ শতাংশ দেশের প্রান্তিক গোষ্ঠি থেকে উঠে আসা অবহেলিত মহিলা। কিন্তু এ শিল্পের মাধ্যমে এদের আর্থ-সামাজিক অবস্থান পরির্বতন হয়েছে, ক্ষমতায়ন হয়েছে, কর্মসংস্থান হয়েছে, সর্বোপরি দেশের শিল্পায়নে যুগান্তকারী অবদান রাখছে। তবে শ্রমঘন হওয়ায় এ শিল্পে মাঝে মাঝে অসন্তোষ সৃষ্টির পায়ঁতার হয়। দেশী-বিদেশী নানামুখী ষড়যন্ত্রের কারণে এ শিল্পের সুনাম ক্ষুন্ন হয়।’

তিনি শ্রমিক-কর্মচারী ও প্রশিক্ষার্থীদের এ বিষয়ে ইতিবাচক ভূমিকা পালন করে সুষ্ঠ কর্মপরিবেশ তৈরিতে সহযোগিতা করা আহবান জানান।

সৈয়দ নজরুল ইসলাম আরো বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী এ শিল্পের প্রতি অত্যন্ত আন্তরিক, করোনাকালীন বিশেষ প্রণোদনা ও নীতি সহায়তা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী এ শিল্পের প্রবৃদ্ধি অব্যাহত রাখতে সহায়তা করেছেন।’

এ জন্য তিনি বিজিএমইএ এর পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃজ্ঞতা জানান। সরকার ও বিভিন্ন উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার সহায়তায় তৈরি পোশাক শিল্পে দক্ষতা, উৎপাদনশীলতা ও শ্রমিক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মান উন্নয়নে বিজিএমইএ সর্বাত্মক প্রচেষ্ঠা চালায় বলে তিনি উল্লেখ করেন।

উল্লেখ্য, এ সেশনে চট্টগ্রামের ১৭টি গার্মেন্টস প্রতিষ্ঠানের ৬৫ জন প্রশিক্ষণার্থী অংশ নেন। বিজিএমইএ সূচনা লগ্ন থেকে এ সেক্টরকে এগিয়ে নেয়ার জন্য নিরাপদ ও টেকসই কর্মপরিবেশ নিশ্চিতকল্পে বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করে আসছে।

সিএন/এমএ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন