বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪

শিরোনাম

নয়াদিল্লিতে যুক্তরাষ্ট্র-ভারত পঞ্চম ‘টু প্লাস টু’ বৈঠকে বাংলাদেশ প্রসঙ্গে আলোচনা

শনিবার, নভেম্বর ১১, ২০২৩

প্রিন্ট করুন

নয়াদিল্লি, ভারত: যুক্তরাষ্ট্র-ভারত পঞ্চম ‘টু প্লাস টু’ বৈঠকে বাংলাদেশ প্রসঙ্গে আলোচনা হয়েছে। বৈঠকে বাংলাদেশ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে নিজেদের অবস্থান জানিয়েছে ভারত। বৈঠকের পর সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ভারতের পররাষ্ট্র সচিব বিনয় খাত্রা।

শুক্রবার (১০ নভেম্বর) ভারতের নয়াদিল্লিতে দুই দেশের পররাষ্ট্র ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর বৈঠকের বর্ধিত আলোচনায় আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর সাথে উঠে আসে বাংলাদেশ প্রসঙ্গ।

সাংবাদিকের প্রশ্নের উত্তরে বিনয় খাত্রা বলেন, ‘বৈঠকের বর্ধিত আলোচনায় আঞ্চলিক নানা ইস্যু, দক্ষিণ এশিয়া ও অন্যান্য বিষয়ের সাথে বাংলাদেশ প্রসঙ্গও এসেছে। বাংলাদেশের ব্যাপারে ভারতের দিক থেকে অবস্থান পরিষ্কার করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘তৃতীয় কোন দেশের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে ভারত কখনোই মাথা ঘামায় না। আমি মনে করি, বাংলাদেশের আগামী জাতীয় নির্বাচন সে দেশের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার। বাংলাদেশের জনগণই তাদের ভবিষ্যৎ ঠিক করবে।’

ভারতের পররাষ্ট্র সচিব আরো বলেন, ‘ঘনিষ্ঠ বন্ধু ও অংশীদার হিসেবে বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে শ্রদ্ধা করে ভারত। বাংলাদেশের লক্ষ্য বাস্তবায়ন, উন্নয়ন, স্থিতশীলতা ও শান্তি প্রতিষ্ঠায় আমরা সহযোগিতা করে যাব; যা সে দেশের জনগণ প্রত্যাশা করে।’

এর আগে ‘টু প্লাস টু’ সংলাপ শুরু হওয়ার আগে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সাথে বৈঠক করেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন। সকালে নয়াদিল্লিতে পৌঁছার কিছুক্ষণ পরই তাদের মধ্যে এ বৈঠক হয়।

দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠকে দুই দেশের কৌশলগত সহযোগিতা, প্রতিরক্ষা এবং ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকার পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়।

এর আগে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত সচিব অরিন্দম বাগচী বলেছেন, ‘বাংলাদেশের নির্বাচন দেশটির অভ্যন্তরীণ বিষয়। বাংলাদেশের মানুষই তাদের ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করবে।’

বৃহস্পতিবার (৯ নভেম্বর) নিয়মিত সাপ্তাহিক প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি আরো বলেন, ‘ঘনিষ্ঠ বন্ধু ও অংশীদার হিসেবে দেশটির গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে সম্মান করে ভারত এবং স্থিতিশীল, শান্তিপূর্ণ ও প্রগতিশীল দেশ হিসেবে এগিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে সমর্থন অব্যাহত রাখবে।’

সম্প্রতি বাংলাদেশে বিএনপির কয়েকজন নেতাকর্মীকে গ্রেফতারের পরিপ্রেক্ষিতে বিরোধীদের ওপর ‘ধরপাকড়’ চালানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করে সাংবাদিকের এক প্রশ্নের উত্তরে এর মন্তব্য করেন অরিন্দম বাগচী।

তিনি বলেন, ‘আমরা অন্য কোন দেশের অভ্যন্তরীণ নীতি নিয়ে মন্তব্য করতে চাই না। বাংলাদেশের নির্বাচন তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়। বাংলাদেশের জনগণই তাদের ভবিষ্যৎ ঠিক করবে।’

সিএন/এমএ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন