রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪

শিরোনাম

নিউইয়র্ক সিটির ডেমোক্র্যাটিক প্রাইমারিতে মিলিন্ডা, শাহানা ও শেখর জয়ী

রবিবার, জুলাই ২, ২০২৩

প্রিন্ট করুন

নিউইয়র্ক, যুক্তরাষ্ট্র: যুক্তরাষ্ট্রোর নিউইয়র্ক সিটির ডেমোক্র্যাটিক প্রাইমারি নির্বাচনে কুইন্স ডিস্ট্রিক্ট এটর্নি পদে মিলিন্ডা কাটজ, সিটি কাউন্সিল মেম্বার পদে শাহানা হানিফ ও শেখর কৃষনান পুন:নির্বাচিত হয়েছেন।

মিলিন্ডা কাটজ কুইন্স ডিস্ট্রিক্ট এটর্নি পদে পেয়েছেন প্রায় শতকরা ৭১ ভাগ ভোট। তার বিপরীতে নিজ দলের অন্য প্রার্থীরা ছিলেন জর্জ গ্রাসে ও ডেভিয়েন ডানিয়েলস। সিটি কাউন্সিল মেম্বার পদে বাংলাদেশি বংশোদভূত শাহানা হানিফ ব্রুকলিনের ডিস্ট্রিক্ট ৩৯ থেকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছেন। বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকা জ্যাকসন হাইটস ও এলমাস্ট এলাকা ডিস্ট্রিক্ট ২৫ থেকে সিটি কাউন্সিল মেম্বার পদে প্রাইমারিতে জয়ী হয়েছেন শেখর কৃষনান। তিনি পেয়েছেন শতকরা ৬৪ ভাগ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী প্যাসিকো পেয়েছেন শতকরা ২৪ ভাগ ভোট।

বুধবার (২৮ জুন) সিটির ৫১ টি সিটি কউিন্সিলের সদস্য পদেই প্রাইমারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে ৪৯টি ডিস্ট্রিক্টেই ইনকামবেন্ট সদস্যরা নির্বাচন করেছেন।

আগামী নভেম্বরে সিটির সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এতে ডেমোক্র্যাট দলীয় প্রার্থীরা রিপাবলিকানদের বিরুদ্ধে লড়বেন। সিটিতে শতকরা ৭৫ ভাগ ভোটার রেজিস্টার্ড ডেমোক্র্যাট হওয়ায় প্রাইমারিতে সাধারণত জয়ীরাই নির্বাচতি হয়ে থাকেন। এ বিবেচনায় ডেমোক্র্যাট প্রার্থীদের বেলায় প্রাইমারি নির্বাচনই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। এ প্রাইমারি নির্বাচনে মিলিন্ডা কাটজের সর্মথনে সরাসরি কাজ করেছেন কমিউনিটির পরিচিত মুখ এটর্নি মঈন চৌধুরী। তার নেতৃত্বেই জ্যাকনসন হাইটসের ডাইভারসিটি প্লাজায় সমাবেশ করে বাংলাদেশিরা মিলিন্ডাকে সর্মথন দেয়। শেখর কৃষনানের পক্ষে সরাসরি ভোটে নেমেছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু জাফর মাহমুদ। তিনি গেল এক মাস তার অনুসারি, সর্মথক ও বাংলা সিডিপ্যাপের স্টাফদের নিয়ে বিরামহীনভাবে শেখরের পক্ষে কাজ করেছেন। ভোটারদের কাছে ভোট চেয়েছেন। জনসাধারনের মধ্যে পোস্টার ও লিফলেট বিলি করেন। তার কাজে নির্বাচনে শেখরের পক্ষে ঢেউ উঠে।

সিএন/এমএ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন