শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪

শিরোনাম

ফের যুক্তরাষ্ট্রে বসে অফিস করার আবদার ঢাকা ওয়াসার এমডির

শুক্রবার, জুলাই ৮, ২০২২

প্রিন্ট করুন

ঢাকা: যুক্তরাষ্ট্রে বসে ফের অফিস করতে চান ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রকৌশলী তাকসিম এ খান। এ জন্য দুই মাসের ‘ভার্চুয়াল অফিসের’ অনুমতি চেয়েছেন তিনি। বৃহস্পতিবার (৭ জুলাই) অনুষ্ঠেয় ঢাকা ওয়াসা বোর্ড সভার আলোচ্যসূচিতে এ বিষয়টি রাখা হয়েছে। অনুমোদন পেলে ঢাকা ওয়াসা এমডি ঈদুল আযহার কিছু দিন পর থেকে ভার্চুয়ালি অফিস করতে যুক্তরাষ্ট্রে যাবেন।

এর আগে ২০২১ সালের ২৫ এপ্রিল থেকে ২৪ জুলাই দুই মাস ভার্চুয়ালি অফিসের অনুমতি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছিলেন তিন। দুই মাসের অনুমতি থাকলেও সেখানে থেকে তিন মাস ভার্চুয়ালি অফিস করেন। সেই বার ছুটিতে যাওয়ার অল্প কিছু দিন আগে তার চুক্তি নবায়ন করে ঢাকা ওয়াসা বোর্ড। তখন তার কোন ছুটি পাওনা ছিল না। এরপরও টানা তিন মাস যুক্তরাষ্ট্র থেকে ভার্চুয়াল অফিস করেছেন বহুল তাকসিম এ খান।

সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র জানায়, এবার সরকার ভার্চুয়ালি অফিসের ছুটি মঞ্জুর করলে তাতে ঢাকা ওয়াসার এমডিকে দিয়ে সংস্থার তেমন কোন কাজ হবে না। কেননা বাংলাদেশের সাথে আমেরিকার সময়ের পার্থক্য প্রায় দশ ঘণ্টা। যেমন বাংলাদেশে যদি সকালনয়টায় অফিস শুরু হয়, তখন আমেরিকায় রাত ১১টা বাজে। ফের বাংলাদেশের বিকাল পাঁচটায় অফিস শেষের সময়ে আমেরিকায় সকাল সাতটা বাজবে। ফলে আমেরিকায় অবস্থান করে ঢাকা ওয়াসার সব কাজ দেখভালের ক্ষেত্রে সময়ের ব্যবধানও বড় সমস্যা।

ঢাকা ওয়াসার বোর্ডের সদস্য মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন গণ মাধ্যমকে বলেন, ‘বৃহস্পতিবার (৭ জুলাই) ঢাকা ওয়াসার বোর্ড সভা হচ্ছে। সভার আলোচ্যসূচি হাতে পেয়েছি। সেখানে ঢাকা ওয়াসার এমডির ভার্চুয়াল অফিসের ব্যাপারটি আছে। এটা কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না। তিনি ভার্চুয়াল অফিসের অনুমতি চাইলেও আমি এটার পক্ষে মত দেব না। যতটুকু শুনেছি তার শারীরিক অসুস্থতা ও পরিবারের সদস্যদের সাথে সময় কাটাতে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ভার্চুয়ালি অফিস করতে চাচ্ছেন। যদি যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়া তার একান্তই প্রয়োজন হয়ে থাকে, তাহলে আমরা তার দুই মাসের ছুটি মঞ্জুর করতে পারি।’

ঢাকা ওয়াসা বোর্ডের অপর এক সদস্য নাম না বলার  শর্তে বলেন, ‘ঢাকা ওয়াসার বর্তমান এমডি কত অন্যায়, কত অযৌক্তিক কাজ করছেন। সাংবাদিক সমাজ তাদের দায়িত্ববোধ থেকে সেসব প্রকাশও করছে। কিন্তু তার বিষযে কোন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না। ঢাকা ওয়াসা বোর্ডে এ বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করলেও তিনি অনেক সদস্যকে ম্যানেজ করে ফেলেন; এ কারণে বোর্ড সভায় তার বিপক্ষে কোন ব্যবস্থা নেয়া সম্ভব হচ্ছে না।’

তিনি জানান, সরকারি কোন আইনে ভার্চুয়ালি অফিসের বিধান নেই। এরপরও তিনি ২০১৯ এ নানা জায়গা থেকে চাপ প্রয়োগ করে বোর্ড সদস্যদের মাধ্যমে সেই প্রস্তাব অনুমোদন করে নেন। দুই মাসের জায়গায় তিনি অতিরিক্ত এক মাস বেশি যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করেছেন। সে সময় বোর্ড সভায় আলোচনা হয়েছিল; তার এক মাসের বেতন কেটে নেয়া হবে। পরে ঢাকা ওয়াসা বোর্ড সেটা কার্যকর করে নি। কেননা অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায়, বেআইনি হলেও অনেক বোর্ড সদস্য এমডি সাহেবের পক্ষে কথা বলেন।’

প্রাপ্ত তথ্য মতে, তাকসিম এ খান নিজের আলোচ্যসূচি অনুমোদন করতে বোর্ড সদস্যদের ওপর চাপও প্রয়োগ করেন। কখনো কখনো ওই বিষয়ে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কর্তাব্যক্তিদের সম্মতি রয়েছে বলে জানান। এসব ঘটনায় বর্তমান ঢাকা ওয়াসা বোর্ড সদস্যরা অসম্মানবোধ করেন। যে বিষয়ে বোর্ড সদস্যরা নিজেরা সিদ্ধান্ত নেবেন, সেখানে বোর্ডের নিয়োগকৃত এমডি তাদের ওপর ছড়ি ঘুরাচ্ছেন। কোন কোন সদস্য কিছু সুযোগ-সুবিধা পেয়ে এমডির ইচ্ছামাফিক মতামত দিচ্ছেন। অন্যরা ইচ্ছার বিপক্ষে অনেক কিছু মেনে যাচ্ছেন। এর ফলে ঢাকা ওয়াসা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবারের (৭ জুলাই) বোর্ড সভায় পানির দাম ২০ ভাগ বাড়ানোর বিষয়েও আলোচনা হবে। বোর্ডের জ্যেষ্ঠ সদস্যরা পানির দাম বাড়ানোর পক্ষে না থাকলেও এমডি এ বিষয়ে চাপাচাপি করছেন। বোর্ড সদস্যরা এ বিষয়টি নিয়ে আগামী ডিসেম্বরে আলোচনা করতে চান বলে জানালেও আজকের বোর্ড সভায় সেটা অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এ ছাড়া বোর্ড সভায় নতুন জনবল কাঠামো, ঢাকা ওয়াসার কর্মচারী সমবায় সমিতির ১৩৫ কোটি লোপাটের বিষয়েও আলোচনা উঠতে পারে। কেননা এ দুটি বিষয় বেশ কিছু দিন ধরে আলোচিত। বোর্ড সদস্যদের অনেকে বিষয়টির সুরাহা করতে চান। বোর্ডের চেয়ারম্যানকেও ঢাকা ওয়াসা প্রশাসন ও কর্মচারীরা দুইটি বিষয় নিয়ে বোর্ডে আলোচনা করে সমাধানের জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন।

বলে রাখা ভাল, ২০০৯ এ ঢাকা ওয়াসার এমডি হিসাবে নিয়োগ পান তাকসিম এ খান। এরপর ধাপে ধাপে সময় বাড়িয়ে তিনি এখনো বহাল তবিয়তে রয়েছেন। এর মধ্যে কেটে গেছে এক যুগেরও বেশি সময়। শুরু থেকে তিনি বছরের একটি লম্বা সময় আমেরিকায় কাটান। সেই ধারাবাহিকতায় এবারো তিনি আমেরিকায় যেতে চাচ্ছেন। তবে ছুটি নিয়ে নয়, সেখানে অবস্থান করে ভার্চুয়ালি অফিস করতে চান।

সিএন/এমএ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন