শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪

শিরোনাম

শিখ নেতা হত্যাকাণ্ডের পরও ভারতকে গুরুত্বপূর্ণ মিত্র বলছে যুক্তরাষ্ট্র

বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২৩

প্রিন্ট করুন

সিএন প্রতিবেদন: কানাডায় ভারতের শিখ নেতা হরদীপ সিং নিজ্জার হত্যাকাণ্ডের ঘটনার পরও নয়াদিল্লি এখনো ওয়াশিংটনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ মিত্র হিসেবে রয়েছে। তবে যুক্তরাষ্ট্র চায়, ভারত এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তদন্তে কানাডাকে সহযোগিতা করুক।

মঙ্গলবার (২৬ সেপ্টেম্বর) নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার এ মন্তব্য করেন।

হরদীপ সিং নিজ্জার হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় কানাডা-ভারত সম্পর্ক যে অবস্থানে এসে দাঁড়িয়েছে, তা ভারত-যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কের ওপর কী ধরনে প্রভাব ফেলতে পারে—এমন এক প্রশ্নের জবাবে ম্যাথিউ মিলার বলেন, ‘আমরা স্পষ্টতই কানাডার পরিস্থিতি নিয়ে বেশ উদ্বিগ্ন। আমরা আমাদের কানাডীয় মিত্রদের ঘনিষ্ঠভাবে সহযোগিতা করছি এবং আমরা ভারতকে সেই তদন্তে সহযোগিতা করার জন্য অনুরোধ করেছি। আমরা এমনটা চালিয়ে যাব।’

ভারতকে যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ মিত্র উল্লেখ করে ম্যাথিউ মিলার আরও বলেন, ‘এবং ভারত এখনো আমাদের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ মিত্র হিসেবে রয়েছে। আমরা তাদের সঙ্গে একাধিক ইস্যুতে কাজ করছি। কিন্তু এ ব্যাপারে (নিজ্জার হত্যাকাণ্ড) আমরা অবশ্যই তাদের প্রতি অনুরোধ জানাই, কানাডার তদন্তে সহযোগিতা করতে।’

ম্যাথিউ মিলারকে প্রশ্ন করা হয়, ‘কানাডায় বিচ্ছিন্নতাবাদী শিখ নেতা হত্যার সঙ্গে ভারতের জড়িত থাকার অভিযোগ করেছে অটোয়া। বিপরীতে ভারত বলেছে, কানাডা সন্ত্রাসীদের নিরাপদ আশ্রয়স্থল। আপনি উভয় দেশের অভিযোগ কিংবা কোনো একটি দেশের অবস্থান নিয়ে উদ্বিগ্ন?’

জবাবে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র বলেন, ‘আমি আগেই বলেছি, আমরা প্রধানমন্ত্রী ট্রুডোর অভিযোগগুলো আমলে নিয়েছি এবং আমরা সেগুলো নিয়ে যথেষ্ট উদ্বিগ্ন। অভিযোগগুলো এতটাই উদ্বেগপূর্ণ যে এগুলোর পূর্ণাঙ্গ ও সুষ্ঠু তদন্ত হওয়া দরকার। কানাডা জানিয়েছে, তারা এ বিষয়ে তদন্ত করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আমরা বিশ্বাস করি, ভারত সরকারের উচিত এতে সহযোগিতা করা।’

এর আগে, কানাডায় খালিস্তান আন্দোলনের নেতা ও ভারতীয় নাগরিক হরদীপ সিং নিজ্জার হত্যাকাণ্ডের তদন্তে কানাডাকে ভারত সহায়তা করবে এবং জবাবদিহি নিশ্চিত করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন। তার আগে নিজ্জার হত্যাকাণ্ডের ইস্যুতে দুই দেশের মধ্যে সৃষ্ট দ্বন্দ্ব নিরসনে উভয় পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে এ বিষয়ে ভারতকে বিশেষ কোনো ছাড় যুক্তরাষ্ট্র দেবে না বলে জানান দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান।

সিএন/এমটি

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন