বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪

শিরোনাম

শীতে খান মেথি শাক

শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৬, ২০২২

প্রিন্ট করুন

লাইফস্টাইল প্রতিবেদক: নানা রকম শাকের মধ্যে মেথিশাকের আলাদা আভিজাত্য রয়েছে। কেননা, সেই প্রাচীনকাল থেকেই এ শাক ভেষজ চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়ে আসছে। মেথিতে থাকা প্রাকৃতিক পুষ্টিগুণ শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে। চুল ও ত্বকের স্বাস্থ্য রক্ষা করে তারুণ্য ধরে রাখতে সাহায্য করে। যারা হতাশায় ভুগছেন কিংবা ডায়াবেটিসের রোগী, তারা নিয়মিত ডায়েটে রাখতে পারেন মেথিশাক।

পুষ্টিবিদদের মতে, ১০০ গ্রাম মেথিশাকে রয়েছে ৫০ ক্যালরি শক্তি। এ ছাড়াও প্রতি ১০০ গ্রাম মেথিশাকে দেড় গ্রাম (সাত শতাংশ) স্যাচুরেটেড ফ্যাট, ৬৭ মিলিগ্রাম (দুই শতাংশ) সোডিয়াম, ৭৭০ মিলিগ্রাম (২২ শতাংশ) পটাশিয়াম, ৫৮ গ্রাম (১৯ শতাংশ) কার্বোহাইড্রেট ও ২৩ গ্রাম (৪৬ শতাংশ) প্রোটিন রয়েছে।

ভেষজ এ শাকটি ভিটামিন সি, ভিটামিন বি ৬, ক্যালশিয়াম, আয়রন এবং ম্যাগনেশিয়ামে ভরপুর। যেহেতু বাংলাদেশে এরই মধ্যে শীত পড়তে শুরু করেছে, তাই এখন নিয়মিত সবারই মেথিশাক খাওয়া উচিত।

শীতে কেন খাবেন মেথি শাক:

ওজন কমায়: মেথিশাকে থাকা হাই ফাইবার অনেকক্ষণ পেট ভরিয়ে রাখে। যে কারণে এ শাক বেশি পরিমাণে খাবার খাওয়া থেকে বিরত রাখে। ফলে ওজন কমে।

কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ: রক্তের লিপিড লেভেলকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারে মেথিশাক। এটি কোলেস্টেরলের এলডিএল এবং এইচডিএলের মধ্যে ভারসাম্য বজায় রাখে।

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ: মেথি শরীরের গ্লুকোজ মেটাবলিজমকে নিয়ন্ত্রণে রাখে। রক্তে চিনির মাত্রাও বাড়তে দেয় না মেথিশাক। তাই যারা ডায়াবেটিসে ভুগছেন, তারা এ শাক খেলে উপকৃত হবেন।

হার্টের সুরক্ষা: মেথিশাক প্লেটলেট বৃদ্ধির গতিকে কমায়। যে কারণে হৃৎপিণ্ডে রক্ত জমে যাওয়ার মত বিপজ্জনক ঝুঁকি হ্রাস পায়। তাই হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি হ্রাস ও ব্লাড প্রেশার নিয়ন্ত্রণে রাখতে মেথিশাক খেতে পারেন।

লিভারের সুরক্ষা: লিভারের সমস্যার ক্ষেত্রে মেথিশাক খুবই কার্যকরী। গ্যাসের সমস্যা, অ্যাসিডিটি, ডায়রিয়া ও অন্ত্রের নানা সমস্যার সমাধানে ব্যবহার করতে পারেন মেথিশাক।

তারুণ্য ধরে রাখতে: ত্বকের স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে নিয়মিত খেতে পারেন মেথিশাক। নিয়মিত এ শাক খেলে অল্প বয়সে মুখে বলিরেখা কখনোই পড়বে না। সেই সাথে মুখে ব্রণ, কালো বা ছোপ ছোপ দাগ দূর করতে জুড়ি নেই মেথিশাকের।

চুলের যত্ন: মেথিশাকে থাকা আয়রন ও ভিটামিন চুলের সব সমস্যার সমাধান করে। মাথায় খুশকি তো দূর করেই, সেই সাথে অকালে চুল পেকে যাওয়ার মত সমস্যাও কমায়। চুল ঘন ও প্রাকৃতিকভাবে রেশমি করে তুলতে মেথিশাক খাওয়ার পাশাপাশি ত্বক ও চুলে ব্যবহার করতে পারেন মেথি তেল।

সিএন/এমএ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন