বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪

শিরোনাম

সংলাপের আহ্বান জানানো যুক্তরাষ্ট্রের সহকারী সেক্রেটারির চিঠি পেয়েছে বিএনপি

মঙ্গলবার, নভেম্বর ১৪, ২০২৩

প্রিন্ট করুন

ঢাকা: বাংলাদেশের আগামী সাধারণ নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজনৈতিক সংকট নিরসনে আলোচনায় বসতে প্রধান তিনটি দলকে আহ্বান জানিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সহকারী সেক্রেটারি ডোনাল্ড লুর চিঠি পেয়েছে বিএনপি। বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী গণ মাধ্যমকে চিঠি পাওয়ার ব্যাপারটি নিশ্চিত করেছেন। তবে, এই পর্যায়ে তাদের দল যুক্তরাষ্ট্রের আলোচনার আহ্বান মেনে নেবে কি না, সে ব্যাপারে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি তিনি।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির একজন সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাসিসটেন্ট সেক্রেটারি অব স্টেট ডোনাল্ড লুর চিঠিটি দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কাছে পাঠানো হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা চিঠিটি স্ক্যান করে তারেক রহমানের কাছে পাঠিয়েছি।’

তিনি আরো বলেন, ‘তিনি এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবেন।’

বিএনপি দীর্ঘ দিন ধরে বলে আসছে, ক্ষমতা থেকে সরকার সরে না দাঁড়ালে ও নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবি মেনে না নিলে সরকারের সাথে আলোচনায় যাবে না তারা।

অন্য দিকে, সরকারও বার বার বলেছে, ‘নিবার্চন হবে সংবিধান মেনে।’

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার হাস জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের বনানী কার্যালয়ে গিয়ে ব্যক্তিগতভাবে চিঠিটি হস্তান্তর করেন।

পরে, সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু সাংবাদিকদের বলেন, ‘আওয়ামী লীগ ও বিএনপিকে একই চিঠি দেয়া হবে।’

চিঠি সম্পর্কে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসের মুখপাত্র স্টিফেন ইবেলি গণ মাধ্যমক বলেছেন, ‘তারা তাদের ‘দীর্ঘ দিনের চর্চার’ অংশ হিসেবে তারা ব্যক্তিগতভাবে কূটনৈতিক যোগাযোগের ব্যাপারে মন্তব্য করেন না।’

অন্য দিকে, জানা গেছে, পিটার হাস আসন্ন জাতীয় নির্বাচনের ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থানের উপর জোর দিতে তিনটি প্রধান রাজনৈতিক দলের সিনিয়র নেতাদের সাথে বৈঠকের অনুরোধ করেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসের জারি করা একটি মিডিয়া বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘যারা গণতান্ত্রিক নির্বাচন প্রক্রিয়াকে ক্ষুণ্ন করে, তাদের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র তাদের ‘থ্রিসি নীতি’ কার্যকর করবে।’

দূতাবাস জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র শান্তিপূর্ণভাবে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন চায় এবং সব পক্ষকে সহিংসতা পরিহার ও সংযম প্রদর্শনের আহ্বান জানিয়েছে।

বিবৃতিতে পুনর্ব্যক্ত করা হয়েছে, ‘যুক্তরাষ্ট্র কোন বিশেষ রাজনৈতিক দলের পক্ষ নেয় না।’

যুক্তরাষ্ট্র সব পক্ষকে পূর্বশর্ত ছাড়াই সংলাপে বসার আহ্বান জানিয়েছে।

এর আগে, অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের লক্ষ্যকে সমর্থন করার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন ও জাতীয়তা আইনের ধারা ২১২ (এ) (৩) (সি) বা ‘থ্রিসি’ এর অধীনে একটি নতুন ভিসা নীতি ঘোষণা করা হয়েছিল। এই নীতির অধীনে, যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক নির্বাচন প্রক্রিয়াকে ক্ষতিগ্রস্ত করার জন্য দায়ী বা জড়িত বলে মনে করা যে কোন বাংলাদেশির জন্য ভিসা সীমিত করতে পারবে।

গেল ২৮ অক্টোবর থেকে যুক্তরাষ্ট্র সব পক্ষকে পূর্বশর্ত ছাড়াই সংলাপে যুক্ত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছে।

সিএন/এমএ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন