শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪

শিরোনাম

১৬.৮০ লাখ মে. টন জ্বালানি তেল, ৮০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কিনবে সরকার

বৃহস্পতিবার, জুলাই ২৭, ২০২৩

প্রিন্ট করুন

ঢাক: দেশের ক্রমবর্ধমান চাহিদা মেটাতে সরকার প্রায় ১৬.৮০ লাখ মেট্রিক টন পরিশোধিত জ্বালানি তেল, ৮০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল ও আট হাজার মেট্রিক টন মসুর ডাল কেনার পৃথক প্রস্তাব অনুমোদন করেছে। অর্থ মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে বুধবার (২৬ জুলাই) ভার্চ্যুয়ালি অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির (সিসিজিপি) চলতি বছরের ২৪তম বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. সাঈদ মাহবুব খান র্ভাচুয়ালি সাংবাদিকদের ব্রিফিং করতে গিয়ে জানান, দিনের বৈঠকে মোট ১৪টি প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়।

তিনি বলেন, ‘জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের একটি প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন (বিপিসি) চলতি বছরের জুলাই থেকে ডিসেম্বর সময়ের জন্য বিভিন্ন দেশের ছয়টি রাষ্ট্র্রীয় মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান থেকে প্রিমিয়াম ও রেফারেন্স মূল্যসহ প্রায় ১২ হাজার ৮৫০ কোটি ৮৭ লাখ টাকায় ১৬.৮০ লাখ টন পরিশোধিত জ্বালানি তেল কিনবে। এ জ্বালানি তেল থাইল্যান্ডের পিটিটিটি, সংযুক্ত আরব আমিরাতের ইনোক, চীনের পেট্রোচিনা, ইন্দোনেশিয়ার বিএসপি, মালয়েশিয়ার পিটিএলসিএল ও চীনের ইউনিপেক থেকে সংগ্রহ করা হবে।’

মাহবুব জানান, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের পৃথক তিনটি প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে রাষ্ট্র পরিচালিত ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) স্থানীয় উন্মুক্ত টেন্ডার পদ্ধতিতে চলতি অর্থ বছরের জন্য মেঘনা ভোজ্য তেল শোধনাগার লিমিটেড়ের কাছ থেকে  প্রায় ১৩১ কোটি ১৬ লাখ টাকায় প্রায় ৮০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল সংগ্রহ করবে। এতে প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের দাম পড়বে ১৫৮ টাকা ৬৭ পয়সা, যা আগে ছিল ১৬১ টকাা ৩৭ পয়সা।

তিনি বলেন, ‘টিসিবি স্থানীয় প্রত্যক্ষ ক্রয় পদ্ধতির মাধ্যমে প্রায় ১১৭ কোটি ৭৫ লাখ টাকায় প্রায় ৭৫ লাখ লিটার রাইস ব্র্যান অয়েল কিনবে। টিসিবি স্থানীয় উন্মুক্ত টেন্ডারের অধীনে চলতি অর্থ বছরের জন্য পদ্ধতিতে নাবিল নাবা ফুডস লিমিটেডের কাছ থেকে প্রায় ৭৫ কোটি ৫৯ লাখ টাকায় প্রায় আট হাজার টন মসুর ডাল কিনবে। এতে প্রতি কেজি (কেজি) মসুর ডালের দাম পড়বে ৮৩ টাকা ৫১ পয়সা, যা আগে ছিল ৯৪ টাকা ৮৪ পয়সা।’

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব বলেন, ‘সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের এক প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে সিসিজিপি আজকের বৈঠকে ময়মনসিংহর কেওয়াটখালী সেতু নির্মাণ প্রকল্পের প্যাকেজ নম্বর ডব্লিউপি-০১ প্রায় দুই হাজার ১৩৭ কোটি ৯৭ লাখ টাকায় সিএসসিইসি চায়না ও স্পেকট্রা ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশের যৌথ উদ্যোগকে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

তিনি জানান, এছাড়া, ক্রয় কমিটির সভায় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের পাঁচটি, স্থানীয় সরকার বিভাগের দুটি এবং জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের একটি করে প্রস্তাবও অনুমোদন করেছে।

সিএন/এমএ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন