শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪

শিরোনাম

৫০ বছরের নজির উল্টে গেল: গর্ভপাত অধিকার আইন বাতিল যুক্তরাষ্ট্রে

শনিবার, জুন ২৫, ২০২২

প্রিন্ট করুন

চলমান নিউইয়র্ক প্রতিবেদন: যুক্তরাষ্ট্রের গর্ভপাত অধিকার আইন বাতিল করা হয়েছে। শুক্রবার (২৪ জুন) প্রায় পাঁচ দশকের পুরনো গর্ভপাত সংক্রান্ত আইন বাতিলে ঐতিহাসিক এক রায় দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্ট।

এ রায়ের ফলে এখন থেকে দেশটির আর কোন নারী গর্ভপাতের ক্ষেত্রে আইনি সুরক্ষা পাবেন না।

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমগুলোর প্রতিবেদন মতে, এ দিন শীর্ষ আদালতের নয় বিচারকের মধ্যে ছয় জনই গর্ভপাত অধিকার প্রত্যাহারের পক্ষে রায় দেন। বিপরীতে বিপক্ষে ছিলেন মাত্র তিন বিচারক।

যুক্তরাষ্ট্রে নারীদের গর্ভপাতের অধিকার থাকবে কি থাকবে না- এ নিয়ে গত প্রায় ৫০ বছর ধরে তিক্ত বিতর্ক চলছিল। ক্ষমতাসীন ডেমোক্রেটিক নেতারা গর্ভপাত অধিকার আইনের পক্ষে। আর রিপাবলিকানরা বিপক্ষে। রায়ের ফলে রিপাবলিকানদেরই জয় হল। অন্য দিকে, ডেমোক্র্যাট রাজনীতিকরা এ রায়ের সমালোচনা করেছেন।

এবিসি নিউজ জানিয়েছে, মিসিসিপি রাজ্যে ইতিমধ্যে ১৫ সপ্তাহ বয়সী ভ্রুণ গর্ভপাতের ক্ষেত্রে যে নিষেধাজ্ঞার আইন রয়েছে, এ দিনের রায়ে সেই আইনই বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্ট।

রায়ে শীর্ষ আদালত বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধান গর্ভপাতের অধিকার দেয় নি। ফলে রো ভার্সেস ওয়েড সিদ্ধান্ত বাতিল করে গর্ভপাত নিয়ন্ত্রণের ক্ষমতা জনগণ ও তাদের প্রতিনিধিদের হাতে ফিরিয়ে দেয়া হল।’

১৯৭৩ সালে রো ভার্সেস ওয়েড নামের এক মামলার রায়ে একটি সিদ্ধান্ত দেন সুপ্রিম কোর্টের তৎকালীন বিচারকরা। সেই সময় বিচারকরা তাদের রায়ে বলেন, ‘ফেডারেল বা রাজ্য সরকার গর্ভপাত নিষিদ্ধ করতে পারে না। তবে কিছু শর্ত আরোপ করতে পারে। এক জন নারীর নিজের দেহের উপরে একশ ভাগ নিয়ন্ত্রণে রাখার অধিকার রয়েছে।’

সেই থেকেই যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে গর্ভপাতের অনুমতি দেয়া হয়। আর নারীরাও এর আইনি সুরক্ষা পেয়ে আসছিলেন। প্রায় ৫০ বছর পর সেই সিদ্ধান্তকে ভুল বলে বাতিল করে দেয়া হল।

বিবিসি জানিয়েছে, ১৩টি রাজ্য আগে থেকেই গর্ভপাতকে অপরাধ হিসাবে গণ্য করতে আইন ও সংবিধান সংশোধনের মত পদক্ষেপ নিয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের এ রায়ের ফলে সেগুলো আপনা থেকেই গর্ভপাত নিষিদ্ধে কার্যকর হয়ে যাবে। আর অন্যান্য রাজ্যগুলো শিগগিরই নতুন আইন পাস করবে।

এ দিকে, সুপ্রিম কোর্টের এ রায়ের ফলে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে বিক্ষোভ-প্রতিবাদের আশঙ্কা করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে শীর্ষ আদালতের এ রায়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন ডেমোক্র্যাট নেতা ও সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। তার মতে, আদালতের এ রায় লাখ লাখ মার্কিন নাগরিকের স্বাধীনতার ওর আক্রমণ।

এক টুইটার বার্তায় ওবামা বলেছেন, ‘আজ সুপ্রিম কোর্ট শুধুমাত্র ৫০ বছরের পুরনো নজিরই উল্টে দেয় নি, সবচেয়ে ব্যক্তিগত এক সিদ্ধান্ত তারা রাজনীতিকদের হাতে তুলে দিয়েছেন।

সিএন/এমএ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন