শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪

শিরোনাম

ফোবানা কনভেনশনে তারেক রহমানের শালা বাবুর মারামারি

বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ৯, ২০২১

প্রিন্ট করুন
ফোবানা কনভেনশনে তারেক রহমানের শালা বাবুর মারামারি 1
ফোবানা কনভেনশনে তারেক রহমানের শালা বাবুর মারামারি 1

মোহাম্মদ আলী: ফোবানা কনভেনশনে মারামারি ও অসৌজন্যমূলক আচরণের ঘটনা ঘটিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির নেতা শরাফত হোসেন বাবু। তার এ ধরনের  আচরণের কারণে বিতর্কে মুখে পড়েছে ফোবানার মত সংগঠন। এ ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন কনভেনশনে উপস্থিত প্রবাসীরা। শরাফত হোসেন বাবু বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের শালা হন। তারেক রহমানের স্ত্রী জুবাইদা রহমানের খালাত ভাই বাবু। সংশ্লিষ্টরা বলছেন ‘বিএনপির নেতা পরিচয়ে ফোবানাকে নিজের হাতের মুঠোয় রাখতে চান বাবু।’ 

গত ৩-৫ সেপ্টেম্বর তিন দিনের ৩৫তম ফোবানা কনভেনশন ওয়াশিংটন ডিসির আর্লিংটন সিটির  ক্রিষ্টাল সিটি হিলটনে আড়ম্বরভাবে সম্পন্ন হয়েছে। তবে সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটিয়েছেন শরাফত হোসেন বাবু। একটি সভায় ৩৫তম ফোবানা কনভেশনের আহ্বায়ক শরাফত হোসেন বাবু ফোবানা স্টিয়ারিং কমিটির এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি কাজী শাখাওয়াত আজমের সাথে চড়-থাপ্পড়, হাতাহাতি ও ধাক্কাধাক্কিতে জড়িয়ে পড়েন। শাখাওয়াত আজম শরাফত হোসেন বাবুকে অ্যাসেলের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন করেন ও কয়েকটি বিষয়ের হিসাব চান। হিসাব চাওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন বাবু। তা নিয়ে দুইজন কথা কাটাকাটিতে লিপ্ত হন। এক পর্যায়ে শরাফত হোসেন বাবু কাজী আজমকে থাপ্পড় দেয়ার চেষ্টা করেন। তবে থাপ্পড়টি লাগেনি। পাল্টা থাপ্পড় দেন কাজী আজম। এর মধ্যে উপস্থিত অনেকে ঘটনা নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করেন। এ সময় শরাফত বার বার কাজী আজম ও তার অনুসারিদের দিকে তেড়ে আসছিলেন। এক সময় কাজী আজমের এক অনুসারির মাকসুদের ধাক্কায় বাবু মেঝেতে পড়ে যান। এতে বাবু পুলিশ ও্ সিকিউরিটি গার্ডদের ডাকার চেষ্টার করেন এবং কাজী আজমসহ অন্যদেরকে বের করে দেয়ার হুমকি দিতে থাকেন। ঘটনার সময় কয়েকটি বাচ্চাও সেখানে উপস্থিত ছিলেন। তারা আতংকিত হয়ে পড়ে। এ ঘটনায় লোকজন বলতে থাকেন, ‘আমরা ফোবানায় থাকব না। একই সাথে ফোবানার প্রভাবশালী সদস্য শাহনেওয়াজ শিল্পী ও সাউন্ড সিস্টেম নিয়ে চলে যাবেন বলে বাবুকে সাফ জানিয়ে দেন।’ এ কথা শোনার পর বাবুর হুঁশ ফেরে। তিনি মাফ চান এবং অবস্থা শান্ত হলে ফোবানার কর্মসূচি ফের শুরু হয়। 

গত শুক্রবার (৩ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় ক্রিষ্টাল সিটি হিলটনের হোটেল লবির সম্মেলন কক্ষে ডেমোক্রেট ন্যাশনাল কমিটির চেয়ারম্যান কংগ্রেসম্যান টম প্যারেস কনভেনশনের উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ফোবানা স্টিয়ারিং কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেন আজম, ভাইস চেয়ারম্যান আলী ইমাম সিকদার, কোষাধ্যক্ষ নিশান রহিম, শাহ নেওয়াজ, মাকসুদুল হক চৌধুরী ও ফিরোজ আহমেদ, সদস্য এজাজ আক্তার তৌফিক, ইমরানুল হক চাকলাদার, আবু লিয়াকত হোসেন, কনভেনশনের টাইটেল স্পন্সর ব্যবসায়ী ও রাজনীতিবিদ আরিফ আহমেদ আশরাফ, অ্যাসালের সভাপতি মাফ মিজবাহ, সেক্রেটারি করিম চৌধুরী।

৩ সেপ্টেম্বর কনভেনশনের প্রথম দিনের দ্বিতীয় পর্বে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যে ছিল তিন দেশের জাতীয় সঙ্গীত, উদ্বোধনী সঙ্গীত ও দলীয় সঙ্গীত। সংবাদ পাঠিকা শামসুন  নাহার নিম্মি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালাইমোনাই অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফার উপস্থাপনায় সঙ্গীত পরিবেশন করেন শিল্পী শুভ্র দেব, রিজিয়া পারভিন, দিনাত জাহান মুন্নি। উপস্থাপনায় সহযোগিতা করেন মাইশা। অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে অনলাইনের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে বক্তব্য দেন সিনেট মেজরিটি নেতা সিনেটর চাক শুমার ও নিউইয়র্ক থেকে নির্বাচিত কংগ্রেসম্যান গ্রেস মেয়। তারা বলেন, ‘বাংলাদেশিরা যেন আরো বেশি মূলধারার রাজনীতির সাথে যুক্ত হোন। বাংলাদেশিরা ভাল করছে। তার কঠোর পরিশ্রমী ও শান্তিপ্রিয়।’ 

৪ সেপ্টেম্বর কনভেশনের দ্বিতীয় দিনে প্রথম পর্বে অনুষ্ঠিত হয় কয়েকটি সেমিনার। কোডিড ১৯ এবং স্বাস্থ্য বিষয়ক সেমিনার পরিচালনা করেন ফোবানা স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য ডাক্তার ইবরুল চৌধুরী। দ্বিতীয় পর্বে অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, স্পন্সর ও মুল ধারার রাজনীতিবিদদের বক্তব্য ও সম্মাননা প্রদান। বক্তব্য দেন জর্জিয়ার স্টেট সিনেটর শেখ রহমান, নিউইয়র্ক সিটির ডিস্ট্রিক ৩৯ কাউন্সিল মেম্বার ইলেক্ট প্রার্থী শাহানা হানিফ, কুইন্স কাউন্টি সিভিল কোর্টের নির্বাচিত জজ অ্যাটর্নি সোমা সায়ীদ প্রমুখ। সঙ্গীত পরিবেশন করেন বেবী নাজনীন, শুভ্র দেব, তাহসান খান, দিনাত জাহান মুন্নী, রানু নেওয়াজ প্রমুখ।

৫ সেপ্টেম্বর কনভেশনের সমাপনী দিনে অনুষ্ঠিত হয় নতুন প্রজন্মের ছেলেমেয়েদের নিয়ে সেমিনার, ফোবানার সাধারণ সভা, বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০০ বছর পূর্তি উপলক্ষে আলোচনা সভা। গান গেয়ে শোনান তপন চৌধুরী, রিজিয়া পারভিন, দিনাত জাহান মুন্নী, আলী, মাহমুদ, রানো নেওয়াজ।

গঠিত হল ফোবানার নতুন স্টিয়ারিং কমিটি: ৩৫তম ফোবানা কনভেশনের দ্বিতীয় দিন ৪ সেপ্টেম্বর সাধারণ সভায় সবার সম্মতিক্রমে আগামী এক বছরের জন্য ৩১ জনের ফোবানার নতুন স্টিয়ারিং কমিটি গঠন করা হয়। এতে সংগঠনের বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান আলী ইমাম সিকদারকে চেয়ারম্যান এবং ২০১৯ এর নিউইয়র্ক সম্মেলনের আহ্বায়ক শাহ নেওয়াজকে এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি করা হয়েছে। কমিটিতে সহ সভাপতি ডাক্তার ইবরুল চৌধুরী (পেনসিলভানিয়া) ও কাজী সাখাওয়াত হোসেন আজম (নিউইয়র্ক), কোষাধ্যক্ষ আবুল আযাদ (টরেন্টো), যুগ্ম সম্পাদক উত্তম দে‘কে (আটলান্টা) দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। সভায় পাঁচ জনের একটি গঠনতন্ত্রের উপ-কমিটি গঠন করা হয়েছে।

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন